মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার ৭টি দুর্দান্ত টিপস

বন্ধুরা আজকে আমি আপনাদের বলবো অনলাইনে মোবাইল দিয়ে কাজ করে টাকা ইনকাম করার সেরা ৭ টি উপায় নিয়ে। তবে আপনি এমনটি ভাববেন না যে দক্ষতা ছাড়া অনলাইনে কোনো প্রকার কাজ না করে টাকা আয় করা যায়।

সে জন্য আপনাকে দিনে অন্তত ২ থেকে ৩ ঘন্টা কাজ করতে হবে, তাহলে আপনি ইনকাম করতে পরবেন। অনলাইনে মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার জন্য বিভিন্ন উপায় রয়েছে।

তার মধ্যে সহজ কিছু উপায় রয়েছে যেটি ব্যবহার করে আপনি সামান্য পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আবার কিছু উপায় রয়েছে যেগুলি ব্যবহার করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যেমন-

দিনে আপনি কত সময় কাজ করতে পারবেন এবং কোন উপায় ব্যবহার করবেন সেটা পুরোপুরী আপনার উপর নির্ভর করবে।

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করতে কি কি লাগবে?

  • অনলাইনে মোবাইল দিয়ে কাজ করার জন্য ভালো মানের একটি স্মার্টফোন দরকার।
  • আপনাকে কাজ করার জন্য ভালো স্পিডের ইন্টারনেট কানেকশন লাগবে।
  • কাজ করে টাকা তোলার জন্য বিকাশ কিংবা Back account ইত্যাদির প্রয়োজন হবে।
  • আপনাকে দিনে অতিরিক্ত ২ থেকে ৩ ঘন্টা সময় কাজ করতে হবে।

কিভাবে কাজ করে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করবেন?

চলুন তাহালে এই পোষ্ট থেকে জেনে আসি কিভাবে ঘরে বসে মোবাইল দিয়ে কাজ করে টাকা ইনকাম করা যাবে।

ব্লগ থেকে কি ধরনের আয় হয়

আপনি অনলাইনে মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং লাভজনক উপায় হলো ব্লগিং করা। বর্তমান সময়ে ব্লগিং করে অনেকেই  প্রতিমাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে।

যদি আপনি গুগলে ব্লগিং করে ইনকাম লিখে সার্চ করেন তাহালে দেখতে পাবেন ব্লগিং কতটা জনপ্রিয়। এখন আপনি যদি মোবাইলে ব্লগিং করতে চান তাহালে প্রথমে একটি ব্লগ সাইট তৈরি করতে হবে। এক্ষেএে আপনি নিজে মোবাইল থেকে সম্পর্ন ফ্রিতে একটি ব্লগিং ব্লগ তৈরি করতে পারবেন।

আপনি ব্লগ তৈরি করার পর সেখানে নিজের দক্ষতা প্রয়োগ করে বিভিন্ন বিষয়ের উপর বাংলা কিংবা ইংরেজি আর্টিকেল লিখে পাবলিশ করবেন। এভাবে নিয়মিত ব্লগে আর্টিকেল পাবলিশ করতে থাকলে ধীরে ধীরে আপনার ব্লগ সাইটে প্রচুর ট্রাফিক আসতে থাকবে। আর যখনই আপনার ব্লগ সাইটে ট্রাফিক আসতে থাকবে আর তখনই আপনি বিভিন্ন মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যেমন-

আপনি যদি সঠিক ভাবে ব্লগিং করতে পারেন তাহালে প্রতি মাসে দশ থেকে ত্রিশ হাজার টাকার বেশি ইনকাম করতে পারবেন। তবে ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে ৩ থেকে ৬ মাস (কনটেন্ট কোয়ালিটি ভালো হলে) কিংবা ১ বছরের মতো ধৈর্য ধরে কাজ করতে হবে।

ইউটিউব চ্যানেল থেকে আয় করার উপায়

ব্লগিং এর মতো ঘরে বসে ইউটিউব থেকে আয় করা অনেক সহজ ও লাভজনক। কারণ, বর্তমানে স্কুল কলেজের বাচ্চা থেকে শুরু করে বয়স্ক মানুষরা পর্যন্ত এই মাধ্যমে টাকা ইনকাম করছে।

এর জন্য আপনাকে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে হবে এবং সেখানে নিয়মিত ভাবে ভালো ও আকর্ষনীয় ভিডিও বানিয়ে আপলোড করতে হবে। আপনি যে বিষয়ে ভালো চানেন সেই বিষয়ে ভিডিও বানাতে পারেন।

নিয়মিত ভিডিও আপলোড করার ফলে ধীরে ধীরে আপনার চ্যানেলে মানুষরা ভিডিও গুলো দেখতে থাকবে এবং আপনার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রইব করবে। যখন আপনার চ্যানেলে ১০০০ সাবস্ক্রইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা ওয়ার্চ টাইম হয়ে যাবে তখন আপনি monetization এর জন্য apply করতে পারবেন।

চ্যানেল মনিটাইজেশন করার পরে আপনার বানানো ভিডিও গুলোতে বিভিন্ন কোম্পনির বিজ্ঞাপন দেখানো হবে। যার ফলে আপনি টাকা আয় করতে পারবেন। আপনি যদি নিজের চ্যানেলটিকে জনপ্রিয় করে তুলতে পারেন তাহালে বিভিন্ন মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যেমন-

  • প্রোডাক্ট বিক্রি (Product sales)
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing)
  • পেইড প্রমোশন (Paid Promotion)
  • পেইড রিভিউ (Paid reviews)

অবশ্যই মনে রাখবেন, যখন আপনি নিচের ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিও তৈরি করবেন, তখন অন্য কোন ভিডিও থেকে ইমেজ কিংবা অডিও ক্লিপ কপি করবেন না।

অনলাইন ইনকাম অ্যাপ

আপনারা হয়তো জানেন মোবাইলে টাকা ইনকাম করার অনেক গুলো অ্যাপ রয়েছে। আপনি যদি গুগল প্লে ষ্টোরে গিয়ে অনলাইন ইনকাম অ্যাপস (online income apps) লিখে সার্চ দেন তাহালে অনেকগুলো apps দেখতে পাবেন।

তবে, এই ধরনের অ্যাপস গুলো থেকে আপনি তেমন ভালো ইনকাম করতে পারবেন না। কারণ, এই অ্যাপের পিছনে আপনি যতটা সময় নষ্ট করবেন সেই সময় হিসাবে তারা আপনাকে টাকা দিবে না।

তবে, আপনার হাতে যদি প্রচুর সময় থাকে তাহালে ইনকাম করার সেরা অ্যাপস গুলো ব্যবহার করার পরামর্শ দিবো। এই apps গুলোতে বিভিন্ন ধরনের কাজ করে আপনি আয় করতে পারবেন। যেমন-

  • ভিডিও দেখা (watch video)
  • গেম খেলা (play games)
  • সার্ভে কাজ করা (Working on the survey)
  • অ্যাপস ডাউনলোড করা (Download apps)

মোবাইল অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য নিচে থাকা অ্যাপসগুলো ব্যবহার করতে পারেনঃ

  • Pocket money app (পকেট মানি অ্যাপ)
  • Dream11 (ড্রিম ১১)
  • Google pay (গুগল পে)
  • RozDhan (রোজধন)
  • Google opinion rewards (গুগল মতামত পুরস্কার)
  • Zagl (জাগল)

এই অ্যাপস গুলো ছাড়াও আপনি গুগল প্লে ষ্টোর (Google play store)-এ বিভিন্ন ধরনের টাকা ইনকাম করার অ্যাপস পেয়ে যাবেন। সেগুলোর মাধ্যমেও কিছু কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ক্যাপচা টাইপিং করে আয়

আপনি ইন্টারনেটে ক্যাপচা টাইপিং করার ওয়েবসাইট খুঁজে পাবেন। যেখানে আপনি নিয়মিত ক্যাপচা টাইপিং করেও মোটামুটিভাবে ইনকাম করতে পারবেন। সারাদিনে আপনার ফ্রি সময় মোবাইলে কাজ করেও টাকা ইনকাম করার ক্ষেত্রেও ক্যাপচা টাইপিং অনেকটাই লাভজনক।

ক্যাপচা টাইপিং করার কাজটি আপনার হাতে থাকা নিজের মোবাইল দিয়েও সহজে করতে পারবেন। এখানে আপনি প্রতিদিন অন্তত ২ থেকে ৩ ঘন্টা সময় দিলে মাসে ৫ থেকে ৮ টাকার মত আয় করতে পারবেন।

এখানে ১০ হাজার ক্যাপচা সঠিক ভাবে করতে পারলে আপনাকে ১ ডলার থেকে ৩ ডলার পর্যন্ত পাবেন।  আপনি গুগলে সার্চ করলে প্রচুর ক্যাপচা ওয়েবসাইট খুঁজে পাবেন।

বাংলা কিংবা ইংরেজি আর্টিকেল লিখে আয়

আপনি যদি আর্টিকেল লিখে আয় করতে ভালোবাসেন তাহালে অনলাইনে আর্টিকেল লিখে টাকা আয় করতে পারবেন। বর্তমানে হাজার হাজার ব্লগ, অনলাইন নিউজ পোর্টাল, সোশ্যাল মিডিয়া পেজ রয়েছে যেখানে আর্টিকেল লেখার জন্য রাইটার প্রয়োজন হয়।

আপনি নিজের মোবাইল থেকে গুগল ডকস (Google docs) ব্যবহার করে মোবাইলে আর্টিকেল লিখতে পারবেন। লেখালেখির কাজ খোঁজার জন্য ব্লগিং এর সাথে জড়িত ফেসবুক পেজ গুলোতে গিয়ে কাজ খুঁজতে হবে।

এছাড়া আপনি যেকোন ব্লগ বা ওয়েবসাইটের মালিকগণের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। যোগাযোগ করার জন্য যোগাযোগ পেজ (Contact page)-এ গিয়ে ইমেইল করেও তাদের সাথে সরাসরি কাজ করতে পারেন। যদি আপনার লেখার কোয়ালাটির ভালো হলে ১ হাজার থেকে ১৫’শ শব্দের আর্টিকেল লেখার জন্য আপনাকে ৩’শ থেকে ৫’শ টাকা পর্যন্ত পাবেন।

ySense ওয়েবসাইট থেকে আয়

ySense মূলত একটি পেইড সার্ভে করে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট। যেখানে প্রতিটি সার্ভে গুলো সম্পর্ন করার বিপরীতে বেশ ভালো পরিমানে টাকা দিয়ে থাকে।

এখানে প্রতিটি পেইড সার্ভে (paid survey) সম্পর্ন করার বিপরীতে আপনাকে ০.৫০ থেকে ৫ ডলার পর্যন্ত টাকা দিয়ে থাকে। আপনি সম্পর্ন ফ্রিতে একটি একাউন্ট তৈরি করে মোবাইল দিয়ে কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন। সে জন্য আপনাকে প্রতিদিন ১ থেকে ২ ঘন্টা কাজ করতে হবে।

ySense একটি পুরোনো ওয়েবসাইট সে কারণে অনেক মানুষ বিশ্বাসের সাথে এখানে কাজ করে। তাছাড়া সার্ভে থেকে অন্য মানুষের refer করে valid singup করানোর জন্য আপনাকে টাকা দেওয়া হবে।

ফাইভার (Fiverr) থেকে টাকা আয় করার উপায়

অনেকে প্রশ্ন করেন মোবাইল দিয়ে কিভাবে Fiverr ওয়েবসাইটে কাজ করে টাকা ইনকাম করবো?

আপনি যেহেতু মোবাইল দিয়ে কাজ করতে চাচ্ছেন, সেহেতু কনটেন্ট রাইটিং এর কাজগুলো মোবাইলে করতে পারবেন। সে জন্য আপনাকে প্রথমে Fiverr ওয়েবসাইটে গিয়ে একটি এ্যাকাউন্ট করে মান সম্মত গিগ তৈরি করতে হবে।

পরিশেষে অনলাইনে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম ছোট পরামর্শ

আমি এখানে মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার যে অ্যাপস বা ওয়েবসাইট সম্পর্কে বলেছি সেগুলো থেকে অনেকেই ঘরে বসে পার্ট-টাইম জব হিসাবে কাজ করে প্রতিমাসে অনেক টাকা ইনকাম করছে। আপনি চাইলেও দক্ষতা অনুযায়ী তাদের মত কাজ করে মোবাইল দিয়ে খুব সহজে ইনকাম করতে পারেন।

সূত্র:- Right News BD 

মন্তব্য করুন

bn_BDBengali