কালো মেয়ে ফর্সা হওয়ার ক্রিম এর নাম কি

আজকের পোস্টে জেনে দিতে চলেছি কালো মেয়ে ফর্সা হওয়ার সহজ উপায় নিয়ে। তাছাড়া কালো ত্বক ফর্সা করার জন্য সবচেয়ে ভাল বেশ কয়েকটি ফেয়ারনেস ক্রিমের নাম ও দাম সম্পর্কে। তাছাড়া এগুলো ক্রিম আপনার পার্শ্ববতি মার্কেটগুলিতে সহজেই কিনতে পাওয়া যায়।

চলুন তাহলে দেরি না করে শুরু করার যাক কালো মেয়ে ফর্সা হওয়ার ক্রিম নাম ও দাম সম্পর্কে

এগুলো ক্রিম বিশেষ করে তৈলাক্ত ত্বক ও শুষ্ক ত্বকের জন্য কিছু ক্রিম রয়েছে। ডে ক্রিম ও নাইট ক্রীম রয়েছে। আজকের এই লিস্টে আপনার ত্বকের জন্য কোন ক্রিমটি ভালো তা অবশ্যই খুঁজে পাবেন।

কালো মেয়ে ফর্সা হওয়ার ক্রিম এর নাম ও দাম

দৈনন্দিন জীবন যাপনের ক্ষেত্রে সূর্যরশ্মি , ধুলা বালি আর দূষণের ফলে আমাদের গায়ের প্রাকৃতিক রঙ হারিয়ে ফেলি। এই সমস্যাটি বিশেষ করে কিছু কম বয়সী মেয়েদের হয়ে থাকে। তারা মূলত সূর্যরশ্মিতে বেশী সময় থাকে থাকে বলেই সমস্যা দেখা যায় । এই সব সমস্যা হওয়ার কারনেই বিশেষ করে তাদের গায়ের রঙ ফর্সা করার উপায় খোঁজে।

তবে তাদের এই সমস্যার কারণে সাজেস্ট করব বাজারের যেনতেন পণ্যের চেয়ে ঘরোয়া পণ্য ব্যবহার করলেই রূপচর্চা অনেক বেশী নিরাপদ। কিন্তু ক্ষেত্র বিশেষ এই সব ঘরোয়া উপায় অবলম্বনে সম্ভব নাও হতে পারে।

সেক্ষেত্রে ফর্সা হওয়ার কিছু ফেয়ারনেস ক্রিমের উপর নির্ভর করতে হয়।

আজকে আমরা এরকম কয়েকটি সেরা ফেয়ারনেস ক্রিম সম্পর্কে আপনাদেরকে জানাবো। যে ক্রিমগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনার মুখের সমস্ত কালো দাগ দূর করতে পারবেন খুব সহজে। তাহলে চলুন জেনে নেই।

গার্নিয়ার ন্যাচারাল হোয়াইট কমপ্লিট মাল্টি ফেয়ারনেস ক্রিম

এই ক্রিমটি মুখের ত্বক ফর্সা করার জন্য। এটি ভিটামিন সি এর থেকে ১০ গুন বেশী শক্তিশালী। তাছাড়া ভিটামিন সি কে ত্বক ফর্সাকারীর এজেন্ট বলা হয়। এটি ব্যবহারের ফলে ত্বককে ইউভিএ রশ্মি থেকে রক্ষা করে ২ সপ্তাহে ত্বকের রঙ অনেকটাই ফর্সা করে তোলে।

গারনিয়ার ফেয়ার নেস ১৮ গ্রাম ক্রিমের দাম ১৮০ থেকে ২২০ টাকা ।

ল্যাকমে পারফেক্ট রেডিয়েন্স ইনটেন্স হোয়াইটেনিং ডে ক্রিম

এই হোয়াটেনিং ক্রিমটি একটি গ্রে কালার জারে থাকে। ক্রিমটি ছেলে ও মেয়ে সবাই ব্যবহার করতে পারেন। এতে আছে ভিটামিন বি৩ যা ত্বকে পুষ্টি দেয় ও সাথে সাথে ত্বক উজ্জ্বল করে তোলে। এর ভেজস উপাদান আপনার ত্বক মসৃণ করে তুলবে।

ল্যাকমে পারফেক্ট রেডিয়েন্স ইনটেন্স হোয়াইটেনিং ডে ৫০ গ্রাম ক্রিমের দাম ৭০০ টাকা থেকে ৭৫০ টাকা।

বায়োটিক বায়ো কোকোনাট হোয়াইটেনং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং ক্রিম

এই ক্রিমটি বিশেষ করে ত্বক ও চুলের যত্নের জন্য একটি ভেজস পণ্য। এই ক্রিমে আছে এক্সট্রা ভার্জিন নারকেল তেল ও অন্যান্য ভেজস উপাদান। এটি শুষ্ক ত্বকের ফর্সাকারী হিসেবে ও ময়েসচারাইজের জন্য খুব ভাল। তবে যাদের তৈলাক্ত ত্বক তাদের জন্য এটা আমি সুপারিশ করব না। কারণ এটি একটু তেলতেলে ক্রিম যা ত্বকের পোর ব্লক করে দিতে পারে।

বায়োটিক বায়ো কোকোনাট হোয়াইটেনং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং ৫০ গ্রামের প্যাকেট ক্রিমের দাম ৪৫০ টাকা।

‘ল’ রিয়েল প্যারিস স্কিন পারফেক্ট এন্টি-ইমপারফেকসান্স অ্যান্ড হোয়াইটেনিং

ত্বকের জন্য ল’ রিয়েল ক্রিম একটি নতুন ক্রিম। বছরের পর বছর ধরে ল’ রিয়েল অনেক ত্বকের যত্নের ক্রিম বাজারে এনেছে। এই ক্রিমটিতে আছে ভিটামিন বি ৩, ভিটামিন ই ও সি। তাই ক্রিমটি আপনার ত্বক শুধু ফর্সা করবে না পাশাপাশি আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়িয়ে তুলবে। আপনার ত্বক রাখবে চিরতরুন।

এ ধরণের ত্বকে ব্যবহার করা যায়। তবে খুব শুষ্ক ত্বকে এটি ময়েসচারাইজ করতে পারে না।

‘ল’ রিয়েল প্যারিস স্কিন পারফেক্ট এন্টি-ইমপারফেকসান্স অ্যান্ড হোয়াইটেনিং ২০ মিলি ক্রিমের দাম ২২০ টাকা ।

ফেয়ার এন্ড লাভলী মাল্টি ভিটামিন ফেয়ারনেস ক্রিম 

ফেয়ার এন্ড লাভলী হল ত্বক ফরসাকারি একটি জনপ্রিয় ক্রিম। এর নতুন সংস্করনটি ব্যবহার অনেক সহজ। আর এতে আছে এসপিএফ‘র সাথে মাল্টি ভিটামিন। এটি প্রতিদিন ব্যবহারের জন্য ভাল। যাদের ত্বক তৈলাক্ত তাদের জন্য পরামর্শ হল। শুধু এই ক্রিম এর উপর ভরসা না করে প্রত্যেক সপ্তাহে অন্তত ২ বার ত্বক এক্সফলিয়েট করা দরকার। 

বিশেষ করে ফেয়ার এন্ড লাভলী ক্রিমটির মাল্টি ভিটামিন ফেয়ারনেস ৫০ গ্রাম ক্রিমের দাম ২২০ টাকা।

ভিএলসিসি স্নিগ্ধ ফেয়ারনেস ক্রিম- ভিএলসিসি এর এই ক্রিম

অনেকে দাবি করে এই ক্রিমটি ত্বককে টান টান করার পাশাপাশি ত্বকের পিগমেন্টেসান সমস্যাগুলো নিমেষেই দূর করে। ক্রিমটিতে আছে কাঁচা হলুদ, লেবুর খোসা, তুঁত এবং যষ্টিমধু। যষ্টিমধুর উপাদান আপনার ত্বক উজ্জ্বল করে আর লেবুর খোসা ও হলুদ ত্বকের টেক্সচার উন্নত করার পাশাপাশি আপনার ত্বকের দাগও দূর করে।

তুঁত আপনার ত্বকে মেলানিন তৈরি করতে বাধার সৃষ্টি করে। এটি ত্বক ফর্সাকারী ক্রিমে আছে এসপিএফ ২৫। এটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য সঠিক বাছাই নাও হতে পারে।

ভিএলসিসি স্নিগ্ধ ফেয়ারনেস ৫০ মিলি ক্রিমের দাম ৮২০ টাকা।

রেভলন টাচ অ্যান্ড গ্লো এডভান্স ফেয়ারনেস ক্রিম

এটি হালকা গোলাপি ও সাদা টিউবে পাওয়া যায় । এতে রয়েছে সান স্ক্রিন। যা দিনের বেলায় আপনি অনায়াসেই ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়া এতে রয়েছে ভিটামিন ও মধু। যা বয়সের ছাপ দূর করে পাশাপাশি ত্বক ফর্সা করে।

রেভলন টাচ অ্যান্ড গ্লো এডভান্স ফেয়ারনেস ৭৫ গ্রাম ক্রিমের দাম ৪৯০ টাকা।

হিমালয়া হারবাল ফেয়ারনেস ক্রিম

এই ক্রিমে আছে প্রাকৃতিক অ্যালোভেরা, ওয়ালনাট, কমলা, গোলাপ ইত্যাদির নির্যাস রয়েছে। যা আপনার ত্বকে অনেক ধরণের কাজ করে। এটি স্কিন টোন করে, দাগ দূর করে ও ত্বক মসৃণ করে কোন প্রকার তেলতেলেভাব ছাড়াই। এই ক্রিমে কোন প্রকার ব্লিচিং এজেন্ট না থাকার কারণে আপনার ত্বকে একটি প্রাকৃতিক ফেয়ারনেস বৃদ্ধি করে।

হিমালয়া হারবাল ফেয়ারনেস ক্রিমটির দাম ১৭০ টাকা।

লোটাস হারবাল হোয়াইট গ্লো স্কিন হোয়াইটেনিং জেল ক্রিম

যাদের ত্বক ঘন ঘন তৈলাক্ত হয়, তাদের ত্বক ফর্সার জন্য এই ক্রিমটি ব্যবহার করতে পারেন। তাছাড়া এই ক্রিমটির ফর্মুলা ওজন হালকা করে। কথা সত্যি হলেও এই ক্রিমটি মুখের ত্বকে খুব দ্রুতই মিশে গিয়ে ত্বক উজ্জ্বল ফর্সা করে। এর এসপিএফ ২৫ এটাকে একটি সঠিক ডে ক্রিমে পরিণত করেছে।

লোটাস হারবাল হোয়াইট গ্লো স্কিন হোয়াইটেনিং অ্যান্ড ব্রাইটেনিং সবচেয়ে ছোট সাইজের দাম জেল ক্রিম এর দাম ২২০ টাকা।

ওলে ন্যাচারাল হোয়াইট ইনস্ট্যান্ট গ্লোইং ফেয়ারনেস সিরাম

এই ক্রিমটির হালকা স্কিন সিরাম যা ত্বকের রঙ ফর্সা করে সহজে ত্বকে মিশে যায় আর এটা তেলতেলে নয়। তাই তৈলাক্ত ত্বকের জন্যও খুব ভাল। তবে শুষ্ক ত্বকের সবাই ক্রিমটা ব্যবহার করতে পারবেন।

ওলে ন্যাচারাল হোয়াইট ইনস্ট্যান্ট গ্লোইং ফেয়ারনেস সিরাম ২০ গ্রামের দাম ১৯০ টাকা।

ফেয়ারনেস ক্রিম ব্যবহারের নিয়ম

এসব ক্রিমগুলো ব্যবহারের কিছু সঠিক নিয়ম রয়েছে যেমন, রাতে ঘুমানোর আগে লাগিয়ে রেখে সকালে ঘুম থেকে উঠে পুনরায় ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। এভাবে আপনি ফর্সা হওয়ার ফেয়ারনেস ক্রিমগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়াও কিছু কিছু ক্রিম রয়েছে যেগুলো রোদে গেলে ব্যবহার করতে হয়। অর্থাৎ এসব ক্রিমগুলো রোদের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। এই ক্ষেত্রেও যখন আপনি বাইর থেকে বাসায় আসবেন অবশ্যই এই ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিবেন।

ফেয়ারনেস ক্রিম ব্যবহারের উপকারিতা

বর্তমান সময়ে আমরা দেখে থাকি ম্যাক্সিমাম ছেলে মেয়ে নিজের ত্বককে ফর্সা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ফেয়ারনেস ক্রিম গুলো ব্যবহার করে। মানুষের শরীর মূলত কালো দেখায় তার মেলানিনের কারণে। যার শরীরে যত বেশি মেলানিন উপস্থিত থাকে সে তত বেশি কালো দেখায়।

আরেকটি বিষয় আমাদের মনে রাখতে হবে মেলানিন আমাদের শরীরকে সূর্যের অতি বেগুনি রশি থেকে রক্ষা করে। আর সূর্যের এই অতি বেগুনি রশি আমাদের শরীরে ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে। তাই শরীরের মধ্যে মেলানিন থাকাটা আবশ্যক।

তবে বর্তমান সময়ে আমরা দেখে থাকি সমাজের সকল ছেলেমেয়ে বিশেষ করে মেয়েরা অনেক ফর্সা হয়ে থাকে। আর এসব মেয়েরা ফর্সা হওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের ক্রিম ব্যবহার করে।

পরিশেষে কালো মেয়ে ফর্সা হওয়ার কিছু কথা:

যেসব মেয়েদের আগে দেখতে অনেক কালো ছিল বর্তমানে তারা সমাজের সকল শ্রেণির লোকদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছে। তাছাড়া সেই মেয়েরা তাদের জীবন যাপনের মানকে ক্রমেই উন্নত করছে। ফলে উজ্জ্বল ভবিষ্যতের দিকে সে অনেকটাই এগিয়ে যাচ্ছে।

যার ফলে দেখা যাচ্ছে সমাজের নিম্ন শ্রেণি পরিবারের মেয়ে বা ছেলে এখন কালো হওয়ার জন্য অন্যের কাছে ঘৃণিত হতে হয় না। যা একটি অত্যন্ত ভালো দিক বলে মনে করা হয়।

সূত্র:- Right News BD

মন্তব্য করুন

bn_BDBengali